ফেসবুক আইডি রানিং ভেরিফাই করার নিয়ম – ফেসবুক আইডি ভেরিফাই ২০২৪

Please share this post

ফেসবুক আইডি রানিং ভেরিফাই – আসসালামু আলাইকুম। টেকনিক্যাল ব্রো বিডি তে আপনাদের স্বাগতম। বিশ্বের সকল দেশের সকল মানুষ ফেসবুক ব্যবহার করে। অনেক সময় আমরা ফেসবুক ব্যবহার করার সময় নানা রকম সমস্যার সম্মুখীন হতে হয়। যেমনঃ ফেসবুক এ লগ ইন হয় না। অটোমেটিক অ্যাকাউন্ট লক হয়ে যায়। ফেসবুক আইডি হ্যাঁ ক হয়ে যায়। অ্যাকাউন্ট অটোমেটিক ২ ঘন্টার জন্য বন্ধ হয়ে যায় সহ নানা রকম সমস্যার সম্মুখীন হতে হয়।

আমাদের মনে নানা রকম প্রশ্ন জাগে ।যেমন কিভাবে লক ফেসবুক আইডি আনলক করতে হয়? কিভাবে হ্যাঁ*ক হয়ে যাওয়া আইডি ব্যাক আনবো সহ নানা রকম প্রশ্ন জাগে।

আজকের এই পোস্টে আমরা আলোচনা করব ফেসবুক আইডি রানিং ভেরিফাই করার উপায় সম্পর্কে। এই ভেরিফাই এর মাধ্যমে আপনি আপনাদের ফেসবুক আইডি ১০০ % নিরাপদে ব্যবহার করতে পারবেন।

ফেসবুক আইডি ভেরিফাই করলে কি হয়

যদি আপনি আপনার ফেসবুক আইডি রানিং ভেরিফাই করেন তাহলে আপনার ফেসবুক আইডি অনেক নিরাপদ এবং শক্তিশালী হবে। সহজেই আইডিতে রেস্ট্রিকশন আসবেনা। অনেক সময় দেখা যায় কোন কারণ ছাড়াই আমাদের ফেসবুকের রেস্ট্রিকশন এবং ওয়ার্নিং চলে আসে। তো এই সকল সমস্যা থেকে আপনার ফেসবুক আইডি কে নিরাপদ রাখতে চাইলে ফেসবুক আইডি ভেরিফাই করতে পারেন।

ফেসবুক আইডি রানিং ভেরিফাই করার নিয়ম

১। ফেসবুক আইডি রানিং ভেরিফাই করার জন্য আপনাকে প্রথমে ফেসবুক এর অফিসিয়াল অ্যাপ ওপেন করতে হবে।

২। ফেসবুক অ্যাপ এর তিন লাইন এ ক্লিক করবেন।

৩। Setting & privecy তে ক্লিক করবেন।

৪। তারপর Settings এ ক্লিক করবেন।

৫। এইবার দেখতে পাবেন Personal Information লেখা, সেখানে ক্লিক করবেন।

ফেসবুক আইডি রানিং ভেরিফাই

৬। Personal Information এ ক্লিক করার পর দেখতে পেয়ে যাবেন Personal Details । আপনারা Personal Details এ ক্লিক করবেন।

৭। Personal Details এ ঢোকার পর দেখতে পেয়ে যাবেন আপনার সকল ইনফরমেশন। আপনি Identity Confirmation এ ক্লিক করবেন।

৮। Identity Confirmation এ ক্লিক করার পর দেখতে পেয়ে যাবেন Confirm your Identity.

ফেসবুক আইডি রানিং ভেরিফাই_2

৯। এবার Confirm your Identity তে ক্লিক করবেন। ক্লিক করার পর দেখতে পাবেন আপনার ফোনের নিচের দিকে ২ টা অপশন এসেছে। একটিতে লিখা থাকবে Runing Ads About social issu.Election or Politices আর আরেকটিতে লিখা থাকবে Protect your account.

১০। আপনারা Runing Ads About social issu.Election or Politices এই লিখতে ক্লিক করবেন।

১১। তারপর দেখতে পেয়ে যাবেন No country Selected লিখা থাকবে। আপনি বাংলাদেশ Select করবেন। তারপর Next অপশন এ ক্লিক করবেন।দেখবেন একটি নোটিশ বক্স আসবে। আপনি yes Countrinue তে ক্লিক করবেন।

১২। তারপর Two Factor Authentication এ ক্লিক করবেন। তারপর Two Factor Authentication চালু করে নেবেন।

১৩। Two Factor Authentication চালু করার পর আপনি দেখতে পেয়ে যাবেন Personal ID document .আপনারা Personal ID document এ ক্লিক করবেন।

ফেসবুক আইডি রানিং ভেরিফাই_2

১৪। ক্লিক করার পর দেখতে পেয়ে যাবেন দুইটা অপশন। এক্টাতে লিখা থাকবে Upload your ID আর ২ টাতে লিখা থাকবে Have a form notarized.

১৫। আপনারা Upload your ID তে ক্লিক করবেন।তারপর Next অপশন এ ক্লিক করবেন। এবার আপনাকে যেকোনো একটি ডকুমেন্ট সাবমিট করতে হবে। সেটি হতে পারে পাসপোর্ট, ড্রাইভিং লাইসেন্স ম্যারিড সার্টিফিকেট কিংবা ন্যাশনাল এনআইডি কার্ড। উদাহরণস্বরূপ আপনি National NID card সিলেক্ট করে নেক্সট এ ক্লিক করলেন।

১৬। তারপর আপনাদের একটি পেজে নিয়ে যাবে।আপনারা Get Start এ ক্লিক করবেন। ক্লিক করার পর আপনাদের National ID Card এর ছবি তুলতে হবে। আপনার এনআইডি কার্ড এর ক্লিয়ার ছবি তুলবেন তারপর সাবমিট করবেন।

১৭। যদি আপনার NID card, passport, driving licence ইত্যাদি কোন ডকুমেন্টস না থাকে, তাহলে সবার নিচে একটি অপশন দেখবেন I don’t have any of this এই অপশনে ক্লিক করবেন। তারপর সেখান থেকে আপনি আপনার স্কুল বা কলেজের আইডি কার্ড কিংবা আপনার বাসার বিদ্যুৎ বিলের ছবি আপলোড দিবেন। যদি আপনার কাছে শুধু এনআইডি কার্ডের ছবি থাকে তাহলেও আপনি সেখানে দুটি ছবি আপলোড দিতে পারেন।

ফেসবুক আইডি রানিং ভেরিফাই_2

১৭। আপনার ডকুমেন্ট ফেসবুক রিভিউ করবে। সাধারণত ৪৮ ঘন্টা সময় লাগে তবে এর আগেই যদি সবকিছু ঠিকঠাক থাকে তাহলে সাথে সাথে কিছু সময় পর হয়ে যায়। যদি আপনার ফেসবুক আইডি রানিং ভেরিফাই হয় তাহলে সেখানে Confirm লেখা চলে আসবে।

১৮। মনে রাখবেন আপনার নাম ও জন্ম তারিখ যেন National ID Card বা ডকুমেন্টের সাথে মিল থাকে। মিল না থাকলে আইডি ভিরিফাই হবে না।

ফেসবুক আইডি রানিং ভেরিফাই এর সুবিধাঃ

আপনার ফেসবুক আইডি যদি ভেরিফাই হয়ে থাকে। তাহলে কেউ আপনার আইডির ক্ষতি করতে পারবে না।আপনার আইডি লক হয়ে গেলে। সাথে সাথে আনলক করতে পারবেন।আপনার আইডি হ**ক হয়ে গেলে আবার ফেরত আনতে পারবেন।যদি কোন কারণ বসত আপনার আইডি ডিসেবল হয়ে যায়। তাহলে আপনারা আবার আইডিটা ব্যাক আনতে পারবেন। ফেসবুক রানিং ভেরিফাই করার বেশ কিছু সুবিধা রয়েছে। এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য হল:

১. স্প্যাম ও ফেক অ্যাকাউন্ট থেকে মুক্তি:

ভেরিফাইকৃত অ্যাকাউন্ট স্প্যাম ও ফেক অ্যাকাউন্ট হিসেবে চিহ্নিত হওয়ার সম্ভাবনা কম থাকে। কেউ যদি আমাদের ফেসবুকে রিপোর্ট করে এবং আমাদের ফেসবুক অ্যাকাউন্টটি যদি ফেক অ্যাকাউন্ট হয় তাহলে আমাদের আইডি ডিজেবল করে হয়ে যেতে পারে।

২. অ্যাকাউন্টের বিশ্বাসযোগ্যতা বৃদ্ধি:

ভেরিফাইকৃত অ্যাকাউন্ট ব্যবহারকারীদের কাছে আরও বিশ্বাসযোগ্য বলে মনে হয়। এতে, ব্যবসা প্রতিষ্ঠানগুলোর ব্র্যান্ড ভ্যালু বৃদ্ধি পায় এবং গ্রাহকদের সাথে বিশ্বাসের সম্পর্ক তৈরি হয়।

৩. সার্চ রেজাল্টে অগ্রাধিকার:

ভেরিফাইকৃত অ্যাকাউন্টগুলো ফেসবুক সার্চ রেজাল্টে উপরের দিকে ফেসবুক আইডি চলে আসে। ফলে, আপনার ফেসবুক বন্ধুরা সহজেই আপনার অ্যাকাউন্ট খুঁজে পেতে পারে।

৪. অ্যাকাউন্ট নিরাপত্তা বৃদ্ধি:

ভেরিফাইকৃত অ্যাকাউন্ট হ্যাক হওয়ার সম্ভাবনা কম থাকে। কারণ, হ্যাকারদের ভেরিফাইকৃত অ্যাকাউন্টের নিয়ন্ত্রণ নেওয়া অনেক কঠিন।

৫. অতিরিক্ত ফিচার:

ভেরিফাইকৃত অ্যাকাউন্টগুলো ফেসবুকের কিছু অতিরিক্ত ফিচার ব্যবহার করতে পারে।
যেমন: ব্লু ব্যাজ, লাইভ ভিডিওতে প্রশ্নোত্তর পর্ব, ইত্যাদি।

৬. ব্র্যান্ডিং ও মার্কেটিং:

ভেরিফাইকৃত অ্যাকাউন্ট ব্যবসা প্রতিষ্ঠানগুলোর জন্য তাদের ব্র্যান্ডিং ও মার্কেটিং কার্যক্রম পরিচালনা করতে সহায়তা করে। এতে, তারা তাদের লক্ষ ফেসবুক ব্যবহারকারীদের কাছে সহজেই পৌঁছাতে পারে।

৭. স্ক্যামিং ও প্রতারণা রোধ:

ভেরিফাইকৃত অ্যাকাউন্ট ব্যবহারকারীদের স্ক্যামিং ও প্রতারণা থেকে রক্ষা করতে সহায়তা করে।

ফেসবুক আইডি রানিং ভেরিফাই করার নিয়ম

নিচে আপনারা একটি ভিডিও দেখতে পারবেন। এই ভিডিওটি দেখেও আপনি ফেসবুক আইডি রানিং ভেরিফাই করতে পারবেন।

আশা করছি ফেসবুক আইডি রানিং ভেরিফাই কিভাবে করতে হয় তার ধারণা পেয়েছেন। পোস্টটি ভালো লাগলে অবশ্যই আপনার বন্ধুর মাঝে শেয়ার করবেন যেন তারাও ফেসবুক আইডি রানিং ভেরিফাই করতে পারে। আজকের মত এখানেই বিদায় জানাচ্ছি। নতুন নতুন এমন পোস্ট পেতে আমাদের সাথেই থাকুন।

ফেসবুক পেজের জন্য কপিরাইট ফ্রি মিউজিক কোথায় পাবেন

ফেসবুকে স্টিকার দিয়ে পোস্ট করার নিয়ম

ফেসবুক ইমোজি নাম আইডি কিভাবে তৈরি করবেন

ফেসবুক স্ট্যাটাস ক্যাপশন

Please share this post

This is MOJNU Proud owner of this blog. An employee by profession but proud to introduce myself as a blogger. I like to write on the blog. Moreover, I've a lot of interest in web design. I want to see myself as a successful blogger and SEO expert.

Leave a Comment